Subscribe Us

header ads

সন্তানদেরকে সম্পত্তি না দিয়ে মসজিদে দান করার বিধান।

উত্তরাধিকারী/ওয়ারিশগণ থাকা সত্ত্বেও সমস্ত জমিজমা মসজিদের জন্য ওয়াক্বফ করার হুকুম



প্রশ্ন: আমাদের গ্রামে রাশেদ নামে এক ব্যক্তি আছে তার কোন সন্তানাদি নাইতবে নিজের ভাই ভাতিজা আছেযেহেতু তার কোনো সন্তান নেই এ কারণে তিনি এই ওসিয়ত করে যেতে চান যে, তার সমুদয় সম্পত্তি মসজিদের জন্য দিয়ে যাবেনলোকেরা তাকে বুঝিয়েছেন যে, আপনার বয়স বেশি হয়ে গেলে আপনার ভাই ভাতিজা যারা রয়েছে তারাই আপনাকে দেখাশোনা করবেএ কারণে সমস্ত জমিন মসজিদে ওয়াক্বফ করা ঠিক হবে নাতারপরও তিনি কিছু লোকজন সঙ্গে করে নিয়ে রেজিস্ট্রি অফিসে যায়এবং এই বলে জমিনকে ওয়াক্বফ করেন যে, আমার প্রায় ২১ বিঘা জমিন আছে আমি যতদিন জীবিত থাকব  এই জমিনের আয়-উপার্জন আমি ভক্ষণ করবআমি ইন্তেকাল করার পরে এই সমুদয় সম্পত্তির আয় রোজগার আমার স্ত্রীর মালিকানায় থাকবে। অতঃপর উক্ত জমিনের মালিকানা আমাদের গ্রামের মসজিদের নামে দিয়ে দেওয়া হবে। 

আর এই কথা গ্রামের কতিপয় লোক ছাড়া আর কেউ জানে নাতিনি ইন্তেকাল করার পরে গ্রামবাসীরা বলে যে, তার সমুদয় সম্পত্তি এখন মসজিদের জন্য দিতে হবেকেননা এখন এই জমির মালিক মসজিদঅতঃপর তার ভাইয়েরা এবং ভাতিজারা আপত্তি করে যে, গ্রামবাসীরা তাকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে এই কাজ করিয়েছেযাতে করে আমরা এ সম্পত্তির হকদার হতে না পারিঅথচ আমাদের সঙ্গে আমাদের ভাইয়ের কোন দ্বন্দ্ব ছিল না, মারামারি ছিল না এবং ঝগড়াও কখনো হয়নিসুতরাং এখন এই জমিন কি ভাইয়েরা ও ভাতিজারা পাবে? নাকি উক্ত মসজিদ এই জমির মালিক হয়ে যাবে?
   

সমাধান: উপরে উল্লেখিত মাসআলার সমাধান এই যে, উক্ত ওসিয়তকারী ব্যক্তির সমস্ত সম্পত্তির এক-তৃতীয়াংশ মসজিদের নামে রেজিস্ট্রেশন করা হবেএবং বাকি সম্পত্তি তাঁর যে ওয়ারিশরা রয়েছে তাঁরা নিবেআর ওয়ারিশদের মধ্যে তার স্ত্রী এবং ভাইয়েরা অন্তর্ভুক্ত হবেভাতিজারা অন্তর্ভুক্ত হবে নাকেননা ভাইয়েরা জীবিত থাকা অবস্থায় ভাতিজারা সম্পত্তি পায় না

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ 

عن عبد الله بن عمر : أن عمر بن الخطاب رضى الله عنه سئل عن الوصية فقال عمر : الثلث وسط من المال لا بخس ولا شطط.( سنن البيهقي الكبرى، باب الوصية بالثلث، 6\269 الرقم: 12948 مجلس دائرة المعارف النظامية الكائنة في الهند ببلدة حيدر آباد. 9\369 الرقم: 12839 ، 6\513 الرقم: 12572 دار الحديث القاهرة)

وإن أوصى بأن تجعل داره مسجدا ولم تخرج من الثلث ولم تجز الورثة تقسم ويجعل ثلاثة مسجدا. (الفتاوى التاتارخانية 5\698 إدارة القرآن كراجي) 

وإذا أوصى بثلث ماله لأجنبي فهذا الوصية جائزة، ولا يحتاج فيها إلى إجازة الورثة ..... وإذا أوصى بأكثر من ثلث ماله لأجنبي فهذه الوصية فيما زاد على الثلث لاتجوز إلا بإجازة الوارث. (الفتاوى التاتارخانية، كتاب الوصايا، الفصل الثالث في بيان ما يجوز من الوصايا وما لايجوز 19\381 الرقم: 31858 – 31859 زكريا) 

(كتاب النوازل 13\43)

সন্তানদেরকে সম্পত্তির কিছু অংশ না দিয়ে মসজিদে দান করার বিধান


প্রশ্ন: আমি আমাদের গ্রামের মসজিদের সভাপতিআমাদের গ্রামে এক হাজী সাহেব আছেন  তার প্রায় ২৫ থেকে ৩০ বিঘা জমি আছে তিনি এবং তার সন্তানের মাঝে ঝগড়া-বিবাদ চলছে ছেলেদের সঙ্গে তার সম্পর্ক তেমন ভালো নাতার সন্তানদের অনুমতি ব্যতীত তিনি তার পাঁচ বিঘা জমি মসজিদে দান করতে চান তাই আমি তাকে বললাম তুমি যদি তোমার সন্তানদের অনুমতি ব্যতীত এই জমিটি মসজিদের দাও তাহলে তারা রাগ করতে পারে। 

এমনকি তার ছেলেরা আদালতে তাকে পাগল সাব্যস্ত করেছে যাতে করে সে তার সম্পত্তির মধ্যে হস্তক্ষেপ করতে না পারেসুতরাং এমত অবস্থায় হাজী সাহেবের উক্ত জমিকে মসজিদের জন্য নিয়ে নেওয়া বৈধ হবে কিনা? এবং তার জোরাজুরির কারণে যদি জমিটি মসজিদের নামে লিখে নেয়া হয় তাহলে আমি গুনাহ্‌গার হবো কিনা?    
 
সমাধান: যে ব্যক্তি নিজের সন্তুষ্টচিত্তে নিজের সম্পত্তির এক-তৃতীয়াংশ ওয়াক্বফ করতে চায় তার ছেলেদের জন্য ঐ ব্যক্তির উপর রাগ করা সমীচীন নয়এমত অবস্থায় তার ছেলেদের রাগ ধর্তব্য হবে নাকেননা তিনি নিজের সম্পত্তির মালিক ইচ্ছা করলে তিনি তা ব্যবহার করতে পারেন, বিক্রয় করতে পারেন ও দান করতে পারেন। এজন্য তিনি যদি নিজের জমিজমার মধ্য থেকে তার সন্তুষ্টচিত্তে পাঁচ বিঘা জমিন মসজিদে ওয়াক্বফ করে থাকেন তাহলে তার এই ওয়াক্বফ বৈধ হবেসে গুনাগার হবে নাএই ক্ষেত্রে আপনিও গুনাগার হবেন নাবরং নেক কাজের সাহায্যকারী হিসেবে আপনিও  নেকির আশা করতে পারেনকেননা নিজের সম্পত্তির এক-তৃতীয়াংশ দান করা বা সদকা করা শরীয়তে বৈধ  

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ

( وشرطه شرط سائر التبرعات ) كحرية وتكليف ( وأن يكون ) قربة في ذاته معلوما ( منجزا ) لا معلقا إلا بكائن (الدر المختار) قوله : وشرطه شرط سائر التبرعات ) أفاد أن الواقف لا بد أن يكون مالكه وقت الوقف ملكا باتا ولو بسبب فاسد ، وأن لا يكون محجورا عن التصرف. (رد المحتار على الدر المختار، مطلب قد يثبت الوقف بالضرورة 4\340 دار الفكر-بيروت. 6\523 زكريا)

وإذا أوصى بثلث ماله لأجنبي فهذا الوصية جائزة، ولا يحتاج فيها إلى إجازة الورثة ..... وإذا أوصى بأكثر من ثلث ماله لأجنبي فهذه الوصية فيما زاد على الثلث لاتجوز إلا بإجازة الوارث. (الفتاوى التاتارخانية، كتاب الوصايا، الفصل الثالث في بيان ما يجوز من الوصايا وما لايجوز 19\381 الرقم: 31858 – 31859 زكريا) 

(كتاب النوازل 13\45) 

 

والله سبحانه وتعالى أعلم

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য