Subscribe Us

header ads

ফজরের নামাজের ওয়াক্ত (সময়) ও তৎসংশ্লিষ্ট কিছু মাসায়েল।

ফজরের নামাজের ওয়াক্ত।


আরও পড়ুন! 
প্রশ্ন: ফজরের ওয়াক্ত কখন শুরু হয় ও কখন শেষ হয়?

সমাধান: ফজরের ওয়াক্ত সুবহে সাদিক থেকে নিয়ে সূর্যদয় পর্যন্ত বাকী থাকে।

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ

عن أبي هريرة رضي الله عنه قال: قال رسول الله صلى الله عليه و سلم .. ... وإن أول وقت الفجر حين تطلع الفجر وإن آخر وقتها حين تطلع الشمس. (سنن الترمذي 1\40)

أول وقت الفجر إذا طلع الفجر الثاني و هو المعترض في الأفق وآخر وقتها مالم تطلع الشمس. (الهداية 1\80) 

(كتاب النوازل 3\215)


ফজরের নামাজের মুস্তাহাব সময়।

প্রশ্ন: ফজরের নামাজের মুস্তাহাব সময় কখন?

সমাধান: সুবহে সাদিকের পরে পরিবেশ আলোকিত হয়ে যাবার পরে ফজরের নামায আদায় করা মুস্তাহাব । তবে এমন দেরি করে না পড়া যে, কোন কারণবশত নামায বিনষ্ট হয়ে গেলে দ্বিতীয়বার আদায় করার সুযোগ থাকেনা । এজন্য সূর্য উদয়ের ২৫-৩০ মিনিট পূর্বেই নামায শুরু করা উচিৎ ।

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ

عن رافع بن خديج قال سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول : (اسفروا بالفجر، فإنه اعظم للاجر) .) سنن الترمذي 1\102 دار الفكر)

(والمستحب) للرجل (الابتداء) في الفجر (بإسفار والختم به) هو المختار بحيث يرتل أربعين آية ثم يعيده بطهارة لو فسد.( رد المحتار على الدر المختار 1\366 دار الفكر-بيروت. 2\24 زكريا)

" ويستحب الإسفار بالفجر " لقوله عليه الصلاة والسلام " أسفروا بالفجر فإنه أعظم للأجر "( الهداية في شرح بداية المبتدي 1\41 دار احياء التراث العربي - بيروت – لبنان)

يستحب تأخير الفجر ولا يؤخرها بحيث يقع الشك في طلوع الشمس بل يسفر بها بحيث لو ظهر فساد صلاته يمكنه أن يعيدها في الوقت بقراءة مستحبة.( الفتاوى الهندية 1\51 دار الفكر)

(كتاب النوازل 3\215)


সূর্য উদয়ের কতক্ষণ পূর্বে ফজরের নামাজ শেষ করা উচিৎ?

প্রশ্ন: অনেক ইমাম সাহেব ফজরের নামাজ অনেক দীর্ঘ করেন কেউবা অনেক সংক্ষিপ্ত করে ফেলেন । আমার জানার বিষয় হল, সূর্য উদয়ের কতক্ষণ পূর্বে ফজরের নামাজ শেষ করা উচিৎ

সমাধান: সুবহে সাদিকের পরে পরিবেশ আলোকিত হয়ে যাবার পরে ফজরের নামাজ শুরু করবেএবং সূর্য উদয়ের এতটুকু পূর্বে নামাজ শেষ করবে যদি কোন কারণবশত নামাজ ফাসেদ হয়ে যায় তাহলে দ্বিতীয়বার আদায় করার সুযোগ থাকে

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ

عن رافع بن خديج قال سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول : (اسفروا بالفجر، فإنه اعظم للاجر) .) سنن الترمذي 1\102 دار الفكر)

(والمستحب) للرجل (الابتداء) في الفجر (بإسفار والختم به) هو المختار بحيث يرتل أربعين آية ثم يعيده بطهارة لو فسد.( رد المحتار على الدر المختار 1\366 دار الفكر-بيروت. 2\24 زكريا)

يستحب تأخير الفجر ولا يؤخرها بحيث يقع الشك في طلوع الشمس بل يسفر بها بحيث لو ظهر فساد صلاته يمكنه أن يعيدها في الوقت بقراءة مستحبة.( الفتاوى الهندية 1\51 دار الفكر)

(كتاب النوازل 3\220)  


সূর্য উদয়ের পূর্ব পর্যন্ত ফজরের নামাজ আদায় করা।

প্রশ্ন: কোন কোন মুছল্লি ফজরের জামাত শেষ হবার পরে মসজিদে আসে এবং ঐ দিনের ফজরের নামাজ আদায় করতে থাকে । সুতরাং সূর্য উদয়ের পাঁচ মিনিট পূর্বে ঐ দিনের ফজরের নামাজ আদায় করতে পারবে নাকি সূর্য উদয়ের পরে আদায় করবে ?

সমাধান: ফজরের জামাত শেষ হবার পর যতক্ষণ সূর্য উদয় না হয় ততক্ষণ পর্যন্ত ফজরের সুন্নাত ও ফরজ উভয়টি আদায় করতে পারবে । কেননা ফজরের ওয়াক্ত সূর্য উদয় পর্যন্ত বাকী থাকে ।

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ

عن أبي هريرة قال: قال رسول الله صلى الله عليه و سلم: إن للصلاة أولا وآخرا.... وإن أول وقت الفجر حين يطلع الفجر وإن آخر وقتها حين تطلع الشمس.( سنن الترمذي 1\283، الرقم:151  دار إحياء التراث العربي – بيروت)

قال (وقت صلاة الفجر من حين يطلع الفجر المعترض في الأفق إلى طلوع الشمس) (المبسوط، باب مواقيت الصلاة، 1\141 دار المعرفة – بيروت)

وآخر وقت صلاة الفجر طلوع الشمس، فإذا طلعت الشمس خرج وقت الفجر،( الميحط البرهاني،الفصل الأول في المواقيت 1\382  دار إحياء التراث العربي)

(كتاب النوازل 3\221)
  

শাবান মাসের ১৫ তারিখে রাত্রি জাগরণ করে এবাদত করে ফজরের নামাজ আগে আগে আদায় করা।

প্রশ্ন: ১৫ শাবান রাত্রিতে অনেক ব্যক্তি এবাদত করে ও রোযা রাখার জন্য সেহরি খেয়ে আজানের পূর্বেই বা পরপরই মসজিদে চলে আসেন । সবার চাহিদা হল সেদিন ফজরের নামাজ আজানের ১৫ মিনিট পরেই আদায় করবে যাতেকরে নামাজের পরে আরাম করার সুযোগ মিলে । সুতরাং এই অবস্থাতে ফজরের নামাজ আগে আদায় করাই শরঈ কোন প্রতিবন্ধকতা আছে কিনা ?

সমাধান: ফজরের নামাজের সময় সুবহে সাদিকের পর থেকে সূর্যোদয় পর্যন্ত বাকী থাকে । এজন্য এই সময়ের মধ্যে যেকোন সময় জামাত করা শরিয়তে কোন নিষেধাজ্ঞা নেই । তবে হানাফীদের নিকটে পরিবেশ আলোকিত হবার পরে ফজরের নামাজ আদায় করা মুস্তাহাব । তবে রমযান বা শাবান মাসের ১৫ তারিখে  পরিবেশ আলোকিত হবার পরে ফজরের নামাজ আদায় করার দ্বারা অধিকাংশ লোক যদি জামাতে উপস্থিত হতে না পারার সম্ভবনা থাকে তাহলে একটু আগে জামাত করে নেওয়াই উত্তম ।

প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ

عن أبي هريرة قال: قال رسول الله صلى الله عليه و سلم: إن للصلاة أولا وآخرا.... وإن أول وقت الفجر حين يطلع الفجر وإن آخر وقتها حين تطلع الشمس.( سنن الترمذي 1\283، الرقم:151  دار إحياء التراث العربي – بيروت)

قال (وقت صلاة الفجر من حين يطلع الفجر المعترض في الأفق إلى طلوع الشمس) (المبسوط، باب مواقيت الصلاة، 1\141 دار المعرفة – بيروت)

عن رافع بن خديج قال سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول : (اسفروا بالفجر، فإنه اعظم للاجر) .) سنن الترمذي 1\102 دار الفكر)

ولأن في الإسفار تكثير الجماعة وفي التغليس تقليلها وما يؤدي إلى تكثير الجماعة فهو أفضل (المبسوط للسرخسي1\267 ، دار الفكر للطباعة والنشر والتوزيع، بيروت، لبنان)

عن أبي هريرة قال: قال رسول الله صلى الله عليه و سلم: إن للصلاة أولا وآخرا.... وإن أول وقت الفجر حين يطلع الفجر وإن آخر وقتها حين تطلع الشمس.( سنن الترمذي 1\283، الرقم:151  دار إحياء التراث العربي – بيروت)

أما الفجر فأول وقت صلاة الفجر حين يطلع الفجر الثاني، وآخره حين تطلع الشمس، لما روي عن أبي هريرة رضي الله عنه أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال: "إن للصلاة أولا وآخرا، وإن أول وقت الفجر حين يطلع الفجر، وآخره حين تطلع الشمس"،( بدائع الصنائع في ترتيب الشرائع 1\373 ، دار الكتب العلمية - بيروت – لبنان)

ولعل هذا التغليس كان في رمضان خاصة، وهكذا ينبغي عندنا إذا اجتمع الناس، وعليه العمل في دار العلوم بديوبند من عهد الأكابر.( فيض البارى شرح صحيح البخارى ، 2\143، كذا في فتح الملهم 3\121)

(كتاب النوازل 3\222)

রমযান মাসে ফজরের নামাজ আজানের কতক্ষণ পরে আদায় করতে হবে।
প্রশ্ন: রমযান মাসে ফজরের জামাত আজানের কতক্ষণ পরে শুরু করা উচিৎ ?
সমাধান: রমযান মাসেও ফজরের আজানের পর এতটুকু সময় দেয়া উচিৎ যে সময়ের মধ্যে মুছল্লিগণ অযু এস্তেঞ্জা ইত্যাদি প্রয়োজন শেষ করে জামাতের জন্য মসজিদে একত্রিত হতে পারে।
প্রদত্ত সমাধানের দলীল সমূহ
عن جابر بن عبد الله أن رسول الله صلى الله عليه و سلم قال لبلال يا بلال إذا أذنت فترسل في أذانك وإذا أقمت فاحدر واجعل بين أذانك وإقامتك قدر ما يفرغ الآكل من أكله والشارب من شربه والمعتصر إذا دخل لقضاء حاجته(سنن الترمذي،1\373 ، الرقم:195 دار إحياء التراث العربي – بيروت، مشكاة المصابيح، الرقم: 647)
(فتاوى دار العلوم ديوبند، 2\45" كتاب النوازل، 3\223)


والله سبحانه وتعالى أعلم

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য